স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা। ভারতবর্ষের স্বাধীনতা এসেছিল ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট এটা সবাই জানে। কিন্তু কোচবিহারে স্বাধীনতা দিবস পালিত হয় দুবার! শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি।
৬৪ বছরের কলঙ্ক কে পেছনে ফেলে ২০১৫ সালের পয়লা আগস্ট মধ্যরাত্রে স্বাধীন হয়েছিল কোচবিহারের ৫১ টি ভূখণ্ড।

যাতে ইতিহাস ছিটমহল নামে পরিচিতি দিয়েছিল। ছিটমহল বিনিময়ের পরে ২০১৫ সালের ৩১শে জুলাই পয়লা আগস্ট এর মধ্য রাতে সেখানে পতাকা উত্তোলন করে প্রথম স্বাধীনতার স্বাদ পেয়েছিলেন ১১হাজার ৯৩৩ জন বাসিন্দা।তারপর থেকে প্রতি বছর পহেলা আগস্ট সাবেকি ছিটমহলগুলোতে পতাকা উত্তোলিত হয় স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের জন্য।

কোচবিহারের সীমান্ত লাগোয়া একটি ছিটমহল বিনিময় হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং কেন্দ্রীয় সরকারের তত্ত্বাবধানে।

ভারতের মধ্যে থাকা বাংলাদেশ ভূখণ্ড এবং বাংলাদেশের মধ্যে থাকা ভারত ভূখণ্ড ছিটমহল নামে পরিচিত ছিল। এখানকার অধিবাসীদের না ছিল কোন পরিচয় পত্র না ছিল কোন নাগরিকত্ব। না ছিল তাদের কোনো অধিকার। ৬৪ বছরের লড়াইয়ের শেষে এই অধিকার তারা পেয়েছিল উপায় দেশের সরকারের কাছ থেকে। তাই তাদের কাছে আজকের দিনটি স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পরিচিত।

কোচবিহার মধ্য মশালডাঙ্গা নিবাসী জয়নাল আবেদীন বলেন, ইচ্ছে ছিল ভারতীয় হওয়ার, ২০১৫ সালে এই স্বপ্ন পূরণ হয় আমাদের। তার আগে দীর্ঘ বহু বছরের লড়াই করেছি আমরা। শুধুমাত্র নাগরিকত্বের জন্য।

আজ আমাদের কোন চিন্তা নেই।ছিট মহল বিনিময় এর অন্যতম কারিগর দীপ্তিমান সেনগুপ্ত বলেন, প্রতি বছরের ন্যায় এই বছরও সাবেকি ছিটমহলগুলোতে পতাকা উত্তোলন হয়েছে। মধ্যরাতে প্রতিটি বাড়িতে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করা হয়েছে। এটা তাদের আবেগ, তাদের দীর্ঘ লড়াইয়ের সফলতা।আগামী ১৫ আগস্ট অর্থাৎ ভারতবর্ষের স্বাধীনতার দিন একইভাবে উদযাপিত হবে স্বাধীনতা দিবস।

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন