খাগড়াগড় বিস্ফোরণের অন্যতম প্রধান অভিযুক্ত জেএমবির শীর্ষনেতা সোহেল মেহফুজকে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দিল ঢাকার আদালত। মেহফুজ ওরফে হাতকাটা নাসিরুল্লা ঢাকায় হোলি আর্টিজান কাফে হামলারও মূল চক্রী ছিল। বাংলাদেশের ওই ঘটনায় মেহফুজ-সহ মোট ৭ জনকে বুধবার মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। সাজাপ্রাপ্তরা হল জাহাঙ্গির হোসেন ওরফে রাজীব গান্ধী, রকিবুল হাসান রেগান, আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদুল ইসলাম ওরফে রাশ, হাদিসুর রহমান সাগর, শরিফুল ইসলাম খালেদ ওরফে খালিদ এবং মামুনুর রশিদ রিপন।

আজ বেলা ১২টায় পুলিশ কাশিমপুর জেল থেকে কড়া নিরাপত্তায় অভিযুক্তদের আদালতে নিয়ে আসে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মৃত্যুদণ্ড শোনানোর পরে সাতজন কোনওরকম অনুতাপ প্রকাশ করেনি। উল্টে তারা চেঁচিয়ে বলে, আমরা ঠিকই করেছিলাম।

২০১৬ সালের ১ জুলাই ঢাকার হোলি আর্টিজান বেকারি নামে এক হোটেলে হানা দেয় জামায়েতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের পাঁচ জঙ্গি। ২০ জন নিহত হয়। বুধবার সেই মামলায় রায় দিলেন বাংলাদেশের স্পেশ্যাল সন্ত্রাসদমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুজিবর রহমান। সাত জঙ্গিকে তিনি মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন।

ওই হামলা চালিয়েছিল বাংলাদেশ এবং ভারতে সক্রিয় জঙ্গী সংগঠন জেএমবি-র আইসিসপন্থী গোষ্ঠী। হামলার অন্যতম মূল চক্রী ছিল শীর্ষ জেএমবি নেতা হাতকাটা নাসিরুল্লা। সে ২০১৪-র বর্ধমান বিস্ফোরণেরও অন্যতম পান্ডা।

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন