স্ত্রীর মনো বাঞ্ছা পূরণ করতে আস্তো এক খান হাতি কিনে দিলেন স্বামী । শুধু হাতি নয়, হাতিকে লালন পালন করতে একজন মাহুতকে মাসিক পাঁচ হাজার টাকা বেতনে চাকরিতে নিয়োগ করেছেন এক কৃষক।
আমাদের প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের ঘটনা।

কৃষকের নাম। রথীধর দোউকি গ্রামের দুলাল চন্দ্র দাস এর আগে স্ত্রীর ইচ্ছে পূরণ করতে এক খান কালো ঘোরা কিনে দিয়েছিলেন।

স্ত্রী তুলসী রানী দাস দেব দেবীর ভক্ত। তিনি নাকি স্বপ্নাদেশ পাবার পর দুলাল বাবুকে বলে বসেন আস্ত একটি হাতি চাই তাঁর। শুধু এবারই নয়। এর আগের বছরও নাকি তিনি দুই দুই নির্দেশে একটি রাজহাঁস, একটি ঘোড়া এবং একটি ছাগল কিনে দেন ।
কিন্তু হাতির নাম শুনে ঘুম উবে যায় দুলাল বাবুর।
হাতি পোষা কি চাট্টিখানি কথা! অনেক খুঁজে হাতির সন্ধান পান। হাতির মালিক ১৭লাখ টাকা দাম হেকে বসেন।
দুই বিঘা জমি বিক্রি করে চাষির ঘরে হাতি আসে।

বাড়ির এক কোনে হাতি বেঁধে রাখা হয়েছে। অন্য কোনে কালো ঘোরা আপন মনে ঘাস খাচ্ছে।
হাতির প্রাতঃরাশ থেকে নৈশভোজের জন্য কলা গাছ জোগার করতে নাভিশ্বাস উঠছে চাষির।
বাড়িতে হাতি আসায় ভেজায় খুশি স্ত্রী আর স্বামী দুলাল স্ত্রীর কথা রাখতে পেরে খুশি হলেও ভবিষ্যতের চিন্তায় তিনি কিছুটা আতঙ্কিত!
হাতি দেখতে এখন গ্রামবাসীর ভিড় লেগে রয়েছে সেখানে।

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন