পাওনা টাকা দেওয়ার নামে ব্যবসায়ীকে বাড়িতে ডেকে জোর করে বিয়ে করার অভিযোগ উঠল। ২২ বছর বয়সি ওই তরুণ ব্যবসায়ীকে বিয়ে করেছেন দুই সন্তানের জননী ৪৬ বছর বয়সী এক বিধবা বধূ। ঘটনাটি মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার অফিস বাজারে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের সোয়ারারতল গ্রামের মৃত হারিছ আলির ছেলে জাবের উদ্দিন (২২) স্থানীয় অফিস বাজারে মুদি দোকানদার। প্রায় ২ বছর আগে একই গ্রামের মৃত বশির উদ্দিনের স্ত্রী বিধবা হেনা বেগম (৪৬) মেয়েকে স্কুলে নিয়ে যাওয়া-আসার সুবাদে জাবের উদ্দিনের দোকানে যেতেন। বিধবা হেনা বেগমের নিকট জাবের উদ্দিনের ৬০ হাজার টাকা পাওনা হলে হেনা দোকানে যাতায়াত বন্ধ করে দেন। জাবের দীর্ঘদিন পাওনা টাকার তাগাদা দিতে থাকলে হেনা ও তার ভাইয়েরা তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।

পরে হেনা এবং তার ভাইয়েরা মিলে পাওনা টাকা নিতে তাদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য বললে জাবের সে রাতে দোকান বন্ধ করে হেনা বেগমের বাড়িতে যায়। এরপর ঘরে ডুকে জাবেরকে আটকিয়ে রাতেই কাজি ডেকে বিয়ে দিয়ে দেন।

ভুক্তভোগী জাবের উদ্দিন জানান, আমি ওই নারীর ছেলের বয়সী। এখন নারী নির্যাতনের মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে, আমার মা ও ভাইদের ধ্বংস করে দিতে চাইছে।

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন